দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাতিলের দাবি জাতীয় দিবসে

 

জাতীয় ও বিশেষ দিবসে প্রাইমারি স্কুলসহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার দবি জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষা গবেষণা পরিষদের নেতারা। মঙ্গলবার এক সংবাদ বিবৃতিতে এ দাবি জানান পরিষদের সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক সুব্রত রায়।
বিবৃতিতে নেতারা বলেন, জাতীয় দিবসগুলো ছুটি না রাখার জন্য বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ায় লেখালেখি ও আবেদন বরাবরই করা হয়। এরপরও জাতীয় দিবসগুলোতে প্রাথমিক বিদ্যালয়সগুলো ছুটি দেয়া হয়। দিবসগুলো কাছাকাছি আসলেই আদেশ জারি করে শিক্ষকদের জাতীয় দিবস পালনের কর্মসূচির দায়িত্ব করতে বলা হয়। তবে, প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো ছাড়া অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষকদের জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে উপস্থিত করানো এতোটা সম্ভব হয় না।
জাতীয় দিবসগুলো সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছুটি থাকায় শিক্ষার্থী উপস্থিত থাকে একেবারেই কম। তাই, দায়সারাভাবে দিবসগুলো পালন করা হয়। শহরের বাইরে গ্রামাঞ্চলের চিত্র হতাশাজনক। আগামী প্রজন্মের দেশ, জাতির সংগ্রামী ইতিহাস ঐতিহ্য সংস্কৃতি ভালভাবে জানানোর জন্য বিদ্যালয় খোলা রেখে কর্মদিন হিসেবে ঘোষণা করা প্রয়োজন।
বিবৃতিতে তাই, জাতীয় দিবসের ছুটিগুলো গ্রীষ্মের ছুটির সাথে সমন্বয় করা এবং সরকারি বিধি মোতাবেক শিক্ষকদের শ্রান্তি বিনোদন ভাতা প্রাপ্তির নিশ্চয়তা দেয়ার দাবি জানিয়েছেন শিক্ষক নেতারা।