শিক্ষামন্ত্রী এনটিআরসিএ নিবন্ধনধারীদের সুখবর দিলেন

শিগগিরই সিলেটের শিক্ষক-সংকট দূর হবে। এ জন্য এনটিআরসির (বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ) মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিলেট সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বিভাগের ২৮টি উপজেলার ৬২২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ‘মিড ডে মিল’ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও সাবেক এমপি সৈয়দা জেবুননেসা হক।

উদ্বোধন হওয়া ১৪টি বিদ্যালয়ের মধ্যে সিলেটের দুটি, মৌলভীবাজারের তিনটি, হবিগঞ্জের চারটি এবং সুনামগঞ্জের পাঁচটি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সারাদেশের তুলনায় সিলেটে শিক্ষক-সংকট বেশি। আশা করছি, নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরুর পর তা আর থাকবে না।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের পরিপূর্ণ বিকাশে পুষ্টির যেন অভাব না হয়। তারা যেন সারাদিন বিদ্যালয়ে অভুক্ত না থাকে, সেই চিন্তা থেকে মিড ডে মিল চালু করা হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার মানোন্নয়নে স্কুল ফিডিং নীতিমালার আওতায় সরকারের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পর মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ‘মিড ডে মিল’ চালু করেছে। শিশুদের স্কুলমুখী করতে প্রতি মিলের জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অনূর্ধ্ব ২০ টাকা গ্রহণ করা যাবে। প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যসম্মত রান্নার জায়গা এবং রান্না পরিবেশন করার জনবলের ব্যবস্থা করা হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সিলেট আঞ্চলিক উপ-পরিচালকের কার্যালয় সূত্র জানায়, সিলেট অঞ্চলে এ পর্যন্ত ৬২২টি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘মিড ডে মিল’ কার্যক্রম চালু হয়েছে। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ২৬২টি, সুনামগঞ্জে ৬৮টি, মৌলভীবাজার জেলায় ১১৬টি এবং হবিগঞ্জ জেলায় ১৭৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর ফলে ২ লাখ ৭০ হাজার শিক্ষার্থী উপকৃত হচ্ছে।