প্রাথমিক শিক্ষকদের ৩ দাবি টাইম স্কেল বাস্তবায়নসহ

জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোট তিন দফা দাবি বাস্তবায়নে সরকারকে আল্টিমেটাম দিয়েছে। আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে এ দাবি বাস্তবায়ন না হলে কঠিন কর্মসূচি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনটি। গতকাল শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোটের নেতারা এ দাবিগুলো তুলে ধরেন। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে-সরকার ঘোষিত ৫০ শতাংশ বেসরকারি চাকরিকাল গণনা কর গ্রেডেশন-পদোন্নতির তালিকা তৈরি করা, প্রধান শিক্ষকের প্রাপ্ত টাইম স্কেলের ভিত্তিতে উন্নীত স্কেল বাস্তবায়ন এবং প্রধান শিক্ষকের গেজেট থেকে বাদপড়া শিক্ষকদের গেজেট সংশোধন করে প্রধান শিক্ষকের গেজেট প্রকাশ।

দাবিগুলো বাস্তবায়নে আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়। এ সময়ের মধ্যে দাবি বাস্তবায়ন না হলে আগামী ২৬ ডিসেম্বর ঢাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শিক্ষক মহাসমাবেশের মধ্যমে কঠিন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

তারা বলেন, জাতীয়করণকৃত শিক্ষকদের চারটি সংগঠন ছিল। এ সংকটময় মুহূর্তে সব মতভেদ ভুলে চারটি সংগঠনের নেতারা ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক মহাজোট গঠন করেছে। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, অধিগ্রহণকৃরত বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বিধিমালা ২০১৩ অনুযায়ী কর্মরত প্রধান শিক্ষকদের টাইমস্কেল ও উচ্চতর বেতন স্কেল এবং সহকারী শিক্ষকদের টাইমস্কেল সুযোগভোগসহ কার্যকর চাকরিকালের ৫০ শতাংশের ভিত্তিতে সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করার কাজ ৮০ শতাংশ শেষ হয়ে যাওয়ার এক পর্যায়ে জামায়াত-বিএনপির ঘাপটি মেরে থাকা কিছু প্রশাসনিক কর্মকর্তা-কর্মচারী বিধিমালা ২০১৩, বিধি ৯, উপবিধি-১ এর ভুল ব্যাখা দিয়ে শিক্ষকদের ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত করছে। এর ফলে অধিগ্রহণ করা শিক্ষকরা হতাশ ও ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েছেন।