গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর নির্দেশনা শিক্ষকদের উদ্দেশে

শিক্ষার্থীদের কোচিংয়ের মাধ্যমে জোর করে বাড়তি পড়া চাপিয়ে দিয়ে জিপিএ-৫ পাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই বলে শিক্ষকদের উদ্দেশে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

বুধবার কেরাণীগঞ্জের জিনজিরা পী.এম.পাইলট স্কুল এ্যান্ড কলেজ ও আমবাগিচা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন শেষে আগানগর ইউনিয়ন পরিষদ সভাকক্ষে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের কোচিংয়ের মাধ্যমে জোর করে বাড়তি পড়া চাপিয়ে দিয়ে জিপিএ-৫ পাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই। বরং পড়াশোনাকে তাদের জন্য আনন্দের বিষয় হিসেবে উপস্থাপন করুন।

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষাকে দেশের সবচেয়ে বৃহৎ পরীক্ষা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশ গঠনে নতুন প্রজন্মই হবে উত্তম কারিগর। তাই একেবারে শেকড় থেকেই আমরা মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে চাই। এ ধরনের পরীক্ষা শিশুর দক্ষতা বাড়াতে সহায়তা করে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে কিন্ডার গার্টেন স্কুল নিয়ে নীতিমালা তৈরীর কাজ চলছে।অন্যদিকে শ্রেণীকক্ষ সংকট নিরসনেও কার্যক্রম অব্যাহত আছে।তাছাড়া ১৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগের ভাইবা চলছে। এতে করে শিক্ষক সংকট নিরসন হবে বলেও তিনি জানান।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষা ঢাকা বিভাগের উপ-পরিচালক ইফতেখার হোসেন ভুইয়া, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আলেয়া ফেরদৌসী শিখা, কেরাণীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেবনাথ, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) কেরানীগঞ্জ সার্কেল কামরুল হাসান সোহেল প্রমুখ।