ভিডিও ভাইরাল : খুঁটিতে বেঁধে প্রাথমিকের শিক্ষিকাকে নির্যাতন

পায়ে দড়ি বেঁধে এক শিক্ষিকাকে ভয়ঙ্কর নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত এক তৃণমূল নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। গত শুক্রবার দুপুরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নন্দনপুর এলাকায় এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রের বরাতে আনন্দবাজার পত্রিকা তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, নন্দনপুরের বাসিন্দা প্রাথমিক স্কুলশিক্ষিকা স্মৃতিকণা দাসের জমি ‘দখল’ করে রাস্তা তৈরি করেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা অমল। বাধা দিতে গেলে অমল তার সঙ্গীদের নিয়ে ওই নারীর ওপর নির্যাতন করেন।

এদিকে নির্যাতনের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই অভিযুক্ত অমলের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেয় তৃণমূল।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার দলের জেলা সভাপতি অর্পিতা ঘোষ ওই ঘটনায় অভিযুক্ত নন্দনপুরের তৃণমূল উপপ্রধান অমল সরকারকে দল থেকে বহিষ্কার করেন।

নির্যাতনের ভিডিও এবং ভিকটিমের ভাষ্য অনুযায়ী- অমলসহ আরও কয়েকজন তৃণমূল নেতা স্থানীয় বাসিন্দাদের সামনে তার পা দড়ি দিয়ে বেঁধে রাস্তা দিয়ে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যান।

তার পর রাস্তার পাশের একটি খুঁটির সঙ্গে বেঁধে তাকে বেধড়ক মারধর করা হয়। সঙ্গে চলে গালাগাল। বাঁচাতে গেলে তার বোনকেও মারধর করা হয়। পরে গুরুতর জখম অবস্থায় ওই শিক্ষিকাকে স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার মাথায় চোট লেগেছে। আহত হয়েছেন তার বোনও। এ ঘটনায় হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েই গঙ্গারামপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন স্মৃতিকণা।

তার অভিযোগ, ‘আমাকে বাঁচাতে এলে বোনকেও তারা মারধর করে। খুনের হুমকি দেয়ার পাশাপাশি গালাগালও করেছে। বাড়িতে আমি আর মা থাকি। খুবই আতঙ্কে রয়েছি।’

ভিডিও টি দেখতে বা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে