ফেসবুকে ‘ক্ষতিকারক পোস্ট’ দিলেই সরকারি চাকরিজীবীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

সরকারি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার নির্দেশিকা ২০১৯ এর পরিমার্জিত সংস্করণ অনুসরণ প্রসঙ্গে

বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরতদের ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের নিয়ম উল্লেখ করে দিয়ে পরিপত্র জারি করেছে জনপ্রাশসন মন্ত্রণালয়। এতে বলা হয়েছে- সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয় এমন পোস্ট, ছবি, অডিও বা ভিডিও, আপলোড, কমেন্ট, লাইক, শেয়ার করতে পারবেন না সরকারি চাকরিজীবীরা।

আজ বৃহস্পতিবার (৭ মে) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব কাজী মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এই পরিপত্র জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, সরকারি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারের সচেতনতা ও এর সুষ্ঠু ব্যবহারের লক্ষে ‘সরকারি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার নির্দেশিকা-২০১৯ (পরিমার্জিত সংস্করণ)’ প্রণয়ন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

সে আলোকে সরকারি কর্মচারীদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু বিষয়সমূহ অনুসরণ করতে বলা হয়েছে। তাতে আরো বলা হয়েছে- জাতীয় ঐক্য ও চেতনার পরিপন্থী কোনো রকম তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। কোনো সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগে এমন তথ্য-উপাত্ত শেয়ার করা যাবে না।

জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা অন্য কোনো সার্ভিস অথবা পেশাকে হেয় প্রতিপন্ন করে এমন কোনো পোস্ট দেয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। পাশাপাশি ভিত্তিহীন অসত্য ও অশ্লীল তথ্য প্রচার হতে বিরত থাকতে হবে তাদেরকে। এছাড়া আরো কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়েছে সরকারি চাকরিজীবীদেরকে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অপব্যবহার বা নিজ অ্যাকাউন্টে ক্ষতিকারক কন্টেন্টের জন্য সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মচারী দায়ি হবেন উল্লেখ করে পরিপত্রে বলা হয়েছে, সে জন্য তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইন ও বিধি-বিধান অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।