শিগগিরই সুখবর পাবেন প্রাথমিক শিক্ষকরা : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেছেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দাবি পূরণের প্রক্রিয়া চলছে। আপনারা খুব শিগগিরই সুখবর পাবেন। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মিলনায়তনে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির আয়োজনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন

জাকির হোসেন বলেন, আপনাদের যে সকল দাবিগুলো আছে, সে দাবিগুলো পূরণের জন্য মন্ত্রণালয়ে আমরা আলাপ আলোচনা করছি, সমাধানের কথা চলছে। আপনাদের প্রধান শিক্ষকরা প্রতিদিন শিক্ষা অফিসে কাগজপত্র নিয়ে দৌঁড়াদৌঁড়ি করেন। এই কষ্ট লাঘবের জন্য আমরা একটা ব্যবস্থা করতে চাই, প্রত্যেক স্কুলে অফিস সহকারি দিতে চাই। আর সে কার্যক্রমও চলতি পথে। আশা করছি খুব শিগগিরই এসব সমস্যার সমাদান হবে।

প্রাথমিক শিক্ষক‌দের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা যদি সরকারে থাকে, আপনাদের দাবি পূরণ হবেই। শেখ হাসিনা যদি বেঁ‌চে থা‌কে আপনাদের যত দাবি, তা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। কারণ, তি‌নি শিক্ষক‌দের কথা বলেন, দেশের কথা ব‌লেন, দেশের মানুষের কথা ব‌লেন।

জাকির হোসেন বলেন, প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রথম সরকারিকরণ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। চল্লিশ বছর পরে তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবার শিক্ষকদের সরকারিকরণ করলেন। বাংলাদেশের মাটিতে আর কোনো সরকার কি আসেনি? এসেছে, তারা কি আপনাদের কথা ভেবেছে? ভাবেনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি আপনাদের কথা ভেবেছেন। তিনি এখনো আপনাদের কথা ভাবেন যে কিভাবে আপনারা ভালো থাকবেন।

অনুষ্ঠানে নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, শিক্ষকদের অধিকার ও সম্মান প্রতিষ্ঠার জন্য আওয়ামী লীগ সরকার সবসময় আন্তরিক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষকদের বেতন ও মর্যাদা বাড়িয়েছেন। শিক্ষকদের আস্থা ও ভরসার স্থল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর শিক্ষকেরা মর্যাদা পাননি। ৭৫ পরবর্তী সরকারগুলো সবক্ষেত্রে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। সবচেয়ে বেশি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে শিক্ষকদের মর্যাদা দেওয়ার ক্ষেত্রে। ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু ৩৭ হাজার এবং ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৬ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন কুড়িগ্রাম জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে অসাধারণ অবদান রেখেছেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, ‘জাকির হোসেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সারাদেশের শিক্ষার ভিত্তি আরও শক্তিশালী করবেন।

সংগঠনের সভাপতি মো. আতিকুর রহমান আতিকের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এ এফ এম মনজুর কাদির, বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ মো. আব্দুর রশিদ প্রমুখ।