প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইমস্কেলের টাকা ফেরত প্রসঙ্গে

অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব হায়াত মোঃ ফিরোজ স্বাক্ষরিত ১২ আগস্ট ২০২০ তারিখের পত্রে এ নির্দেশনা প্রদান করা হয়। 

২০১৩ ও ২০১৪ সালে জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গৃহিত টাইমস্কেলের সংশোধনী আদেশ জারী করে এ বাবদ গৃহিত অতিরিক্ত অর্থ সরকারী কোষাগারে ফেরত প্রদানের নির্দেশনা জারী করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বাস্তবায়ন অনুবিভাগ

এ বিষয়ে মহা হিসাবনিয়ন্ত্রক এর জাতীয়করণকৃত শিক্ষকদের চাকুরীকাল গণনা ও আর্থিক সুবিধাদি প্রদান সংক্রান্ত পত্রের স্পষ্টিকরণ পত্রের ব্যাখ্যায় এ নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

পত্রের ব্যাখ্যায় বলা হয়, বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ( চাকরীর শর্তাদি নির্ধারন ) বিধিমালা, ২০১৩ এর বিধি ২(গ) এ উল্লিখিত 'কার্য্যকর চাকুরীকাল' (বেসরকারী চাকুরীর ৫০%) বিধি ১০ এর অধীনে শুধুমাত্র পেনশন নির্ধারনের জন্য প্রযোজ্য হবে।

কিন্তু ইতোমধ্যে উক্ত ৫০% বেসরকারী চাকুরীকাল গণনা করে দেশের বিভিন্ন উপজেলা ও জেলায় অনেক জাতীয়করণকৃত শিক্ষক টাইমস্কেল গ্রহণ করে বেতন ভাতাদি উত্তোলণ করছেন।

পত্র অনুযায়ী গৃহিত টাইমস্কেলের সংশোধনীসহ অতিরিক্ত অর্থ আদায় ও বিষয়টির সাথে জড়িত সকলের বিরূদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য মহা হিসাবনিয়ন্ত্রক বরাবর প্রেরিত পত্রে বলা হয়েছে।