চলতি মাসেই প্রাথমিকের সার্কুলার, আবেদন ফি ১৭০ টাকা

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রানালয় থেকে জানা গেছে প্রাক-প্রাথমিক ও সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে ডিপিই থেকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি তৈরি করে অনুমোদনের জন্য মন্ত্রানালয়ে পাঠানো হয়েছিল। 

সহকারী শিক্ষক পদটি এখন ১৩ তম গ্রেডে উন্নীত হওয়ায় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা অনুসারে অভ্যান্তরীণ কোটা রাখার বিষয়টির ব্যাখ্যা  চেয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রানালয় থেকে জনপ্রশাসন মন্ত্রানালয় চিঠি পাঠানো হয়েছিল।

জনপ্রশাসন মন্ত্রানালয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সকল জাতীয় কোটা বাতিল করে মন্ত্রাণালয়ের অভ্যান্তরীন কোটা বহাল রেখে এ নিয়োগ কার্যক্রম চালাতে সম্মতি দেয়া হয়। ইতিমধ্যে মন্ত্রাণালয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে ( ডিপিই) নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশনা দিয়েছেন।

সিন্ধান্ত মোতাবেক আগের সব কোটা বাতিল করা হয়েছে। কোটাগুলো হলো মুক্তিযোদ্ধা , ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, আনসার-ভিডিপি, প্রতিবন্ধী, ও জেলা কোটা। এখন সহকারি শিক্ষকদের বেতন গেড ১৩ তম হওয়ায় কোটা বাতিল করা হয়েছে।

তবে নির্ধারিত ৬০ শতাংশ নারী, ২০শতাংশ পুরুষ এবং ২০ শতাংশ পোষ্য কোটা বহাল থাকছে। এগুলোর মধ্যে প্রতিটিতে ২০ শতাংশ করে বিজ্ঞান বিষয়ে কোটা অনুসরন করা হয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর পুর্বে ই জানিয়েছেন যে ২৫হাজার ৬৩০জন প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষক এবং ৬ হাজার ৯৪৭জন সহকারী শিক্ষকের শূ্ন্যপদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করতে ওয়েবসাইট আধুনিকায়ন করা হয়েছে।

ডিপিইর নিয়োগ শাখার সহকারী পরিচালক আতিক বিন সাত্তার বলেন চলতি মাসেই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সিদ্ধান্ত হয়েছে। অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য ১ মাস সময় দেয়া হবে। আবেদন আগের মতো প্রায় ১৭০ টাকা করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন মোট ৩২হাজার ৫৭৭ জন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। ২৫ হাজার ৬৩০জন প্রাক-প্রাথমিক আর ৬ হাজার ৯৪৭জন সহকারী শিক্ষকের শূন্য পদ পুরুন করা হবে। তিনি আরো বলেন আবেদন কারী নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে ২য় শ্রেণির স্নাতক ( সম্মান ) , স্নাতক (পাস) বা সমমান ডিগ্রি করা হয়েছে।বুয়েট ও টেলিটক মোবাইল কোম্পানির কারিগরী সহায়তায় আবেদনপত্র গ্রহন , কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র পাঠানো ,খাতা মূল্যায়ন ও ফলাফল প্রকাশ করা হবে।