১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রতিটি বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষককে অনলাইনে গুগল রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণের নির্দেশনা: ডিপিই

বৃহস্পতিবার ( ২১ জানুয়ারি) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর প্রতিটি বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষককে অনলাইনে গুগল রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণের  অগ্রগতি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে নির্দেশনা জারি করে। আদেশে বলা হয় ,‘ প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রতিটি বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষককে অনলাইনে গুগল রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণের  নির্দেশনা জারি করা হয়।”

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আইসিটিতে দক্ষ শিক্ষক তৈরি করতে প্রত্যেক বিদ্যালয় থেকে একজন শিক্ষককে অনলাইনে গুগল রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। এছাড়া ই-প্রাইমারি সিস্টেমে যথাযথভাবে বিদ্যালয়ের মৌলিক তথ্য, ভৌত তথ্য, শিক্ষক বদলি, শিক্ষার্থী ভর্তিসহ অন্যান্য তথ্য আপডেট নিশ্চিত করতে আগামী ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তথ্য পাঠাতে হবে।

অফিস আদেশে বলা হয়, প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একজন করে আইসিটি দক্ষ শিক্ষক তৈরি করতে প্রত্যেক বিদ্যালয় থেকে একজন শিক্ষককে অনলাইনে গুগল রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করতে হবে। মনোনীত শিক্ষকরা ভার্চুয়াল অরিয়েন্টেশনে পর্যায়ক্রমে অংশ নেবেন। সব শিক্ষকরা Helping Page on e-Monitoring পেজে Like/Follow দিয়ে সংযুক্ত হবেন। এ সংক্রান্ত পত্র এর আগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের সকল বিভাগীয় উপ-পরিচালককের পাঠানো হয়। কিন্তু পর্যালোচনা করে দেখা যায় Helping Page on e-Monitoring পেজে এ পর্যন্ত সংযুক্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৭৫ জন, যা হতাশাজনক।

এছাড়া ই-প্রাইমারি সিস্টেমে তথ্য আপডেট, শিক্ষকদের ডাবল এন্ট্রি প্রোফাইলের একটি ডিলিট অপশন থেকে প্রোফাইল কর্মরত বিদ্যালয়ে ফিরিয়ে আনার জন্য বিভাগ/জেলা ও উপজেলাভিত্তিক ছকে পাঠানো জরুরি। এতে শিক্ষকের নাম, শিক্ষকের পিন নম্বর, যে নম্বরে প্রোফাইল ডিলিট হবে, যে মোবাইল নম্বরের প্রোফাইল ডাটাবেজ থাকবে এবং যে মোবাইল নম্বরের প্রোফাইল অজানা/পিআরএল অপশন থেকে কর্মরত বিদ্যালয়ে আনতে হবে।

প্রতি সপ্তাহের শনিবার সন্ধ্যায় পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ এবং Helping Page on e-Monitoring ফেসবুক পেজের আয়োজনে ই-মনিটরিং সিস্টেমের অরিয়েন্টেশন বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপে লাইভ প্রচারিত হয়। ভিডিও ক্লিপ পেজে আপলোড করা হয়। এ পর্যন্ত ৪ হাজার শিক্ষককে অরিয়েন্টেশন প্রদান করা হয়েছে। সারাদেশের শিক্ষকগণ আপলোড করা ভিডিও দেখে সহজেই ই-প্রাইমারি সিস্টেমে তথ্য এন্ট্রির বিষয়ে ধারণা ও সহযোগিতা পেয়ে থাকেন।

এরই মধ্যে সব শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির সহায়তায় Helping Page on e-Monitoring ফেসবুক পেজে জুম ক্লাউড, গুগল মিট, শিক্ষক বাতায়ন, মুক্ত পাঠের কোর্সগুলোর ওপর ব্যবহারবিধি ইত্যাদি বিষয়ে সফটওয়ারের ওপর অরিয়েন্টেশনে সেশন পরিচালনা করা হবে।

এ অবস্থায় ই-প্রাইমারি সিস্টেমে যথাযথভাবে বিদ্যালয়ের মৌলিক তথ্য, ‘ভৌত তথ্য, শিক্ষক বদলি, শিক্ষার্থী ভর্তিসহ অন্যান্য তথ্য আপডেট নিশ্চিতকরণ তথ্য আগামী ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে পাঠাতে হবে।’