রমজানে থাকবেন সুস্থ যে নিয়ম মানলে

রমজানে ইফতারে অতিরিক্ত খাওয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখাটা একটু কঠিন হয়ে পরে অনেকের জন্যই। আবার অনেকে ভাবেন যে, রোজা রেখে ওজন কমিয়ে ফেলবেন। কিন্তু রোজা রাখলে ওজন কমে এই চিন্তাটাই ভুল। দিন শেষে রোজা খুলে অনেক ভুঁড়িভোজ করে অসুস্থ হওয়ার বিষয়টি নতুন নয়। এতে করে ওজনও কিন্তু অনেকের বাড়ে। তার উপর সেভাবে হাঁটা বা ব্যায়াম করা হয় না। তাই জেনে নিন কিছু পরামর্শ যা মানলেই রমজানে থাকবেন সুস্থ।

টেলিভিশন কম দেখুন

প্রতিদিন এক ঘণ্টা কম করে টেলিভিশন দেখুন। গবেষণায় জানা গিয়েছে যে, অতিরিক্ত সময় ধরে টেলিভিশন দেখতে থাকলে অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করার প্রবণতা ও বেড়ে যায়।

ইফতার শেষে গেইম খেলুন

একটা ছোট ভলিবল গেইম খেললে প্রতি ঘণ্টায় ১৮০ কিলোক্যালরি বার্ন করা সম্ভব। ইফতারের পর ক্যালোরি বার্ন করার জন্য সাইক্লিং, দড়িলাফ,অন্য কোনো গেইমস কিছু সময়ের জন্য খেলতে পারেন।

ফল খান

শরীরে ভিটামিনস এবং ফাইবার বাড়াতে প্রতিদিন ইফতার থেকে সেহেরির মধ্যে কম হলেও একটি ফল খাওয়ার চেষ্টা করুন। সে ক্ষেত্রে যে কোনো ফলই উপকারি। তবে যে ফলে পানির পরিমান বেশি সেটা খাওয়াই ভাল।

পুষ্টিগত মান জানুন

প্রতিটা খাবার কেনার আগে অবশ্যই তার গায়ে থাকা লেবেল পড়ে নিন। এতে করে সেই খাবারের পুষ্টিগত মান সম্পর্কে জানতে পারবেন।

বাসা নিজে পরিষ্কার করুন

নিজের বাসা নিজে নিজে পরিষ্কার করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। শুয়ে-বসে থাকার চেয়ে এটা তিন গুণ বেশি আপনার ক্যালোরি বার্ন করতে সাহায্য করবে এবং শরীরে মেদ জমতে দিবে না।

প্রচুর পানি পান করুন

ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে এবং দেহের দূষিত পদার্থ বের করতে প্রতিদিন, এমনকি এই রমজানেও ইফতার থেকে সেহেরি পর্যন্ত কমপক্ষে ৮-১০ গ্লাস পানি পান করার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

চোখকে আরাম দিন

শুষ্ক চোখ বা ড্রাই আইসের অন্যতম কারণ হচ্ছে কম্পিউটার স্ক্রিনের দিকে একটানা তাকিয়ে থাকা। চোখের ডাক্তাররা চোখের পেশিকে রিল্যাক্স করার জন্য ২০-২০-২০ রুল ফলো করতে বলেন। অর্থাৎ প্রতি ২০ মিনিটে একবার কম্পিউটার স্ক্রিন থেকে চোখ সরিয়ে অন্ততপক্ষে ২০ ফুট দূরে থাকা যেকোন জিনিসের দিকে অন্তত ২০ সেকেন্ডের জন্য তাকিয়ে থাকুন। চোখ রিল্যাক্সড হবে।

খাওয়া নিয়ন্ত্রণ করুন

ইফতারের পর বা যেকোনো সময়ে এটা সেটা খেয়ে ফেলা থেকে নিজেকে বিরত রাখতে নিজের মনকে বোঝান। অল্প কিছু খেতে ইচ্ছা করলেও তা সময় বুঝে খেতে হবে।

রাতে খাবার ও ঘুম নিয়ম মত

অনেকেই আছেন যারা ইফতার করে রাতের খাবার খাওয়ার পরপরই ঘুমিয়ে পড়েন ও সেহেরির আগ থেকে উঠেন। কিন্তু রাতের খাবার খাওয়ার অন্তত ২ ঘণ্টা পর ঘুমাতে যেতে হবে।